অমলের মনোলোগ – অভি চক্রবর্তী

বনবাস বা অজ্ঞাতবাস আসলে এক একটা 

জতুগৃহ নির্মাণের নিজস্ব প্রস্তুতি, গালা বা লাক্ষা নয়

প্রেম দিয়ে গড়া হোক,আমাদের জতুগৃহ…হস্তিনাপুর জানে 

এই উঠোনে গনগনে প্রেমের মতো দাহ্য কিছু নেই। 

দহন যন্ত্রনা নিয়ে এসো, বিষে বিষে নীল হোক ঠোঁট

পোড়া তোমায় গলিয়ে এক করে দেবে…শিখা এক হবে আমাদের

ঈশারা কে ইস্তেহার ভেবে আবার ,যথারীতি  ভুল হয়েছে আমার…

কামারশালে লাল হয়েছে লোহা,স্বপ্ন আমার কবেই গিয়েছে খোয়া 

এসব নিতান্ত স্বপ্নের ছায়াপথ, আমার বেঁচে থাকা একান্ত বেহায়া 

এখনো সকলে মাপছে আমায়, চোখে নাকে লম্বা রেসের ফিতে 

শিমূল নিয়ে সুধা দাঁড়িয়ে আমার থেকে দূরে, বহুদূরে…

অখন্ড নীরবতা রাখবার জন্য কাগজ নেই কোনো! 

অন্তত এক শুন্য কলসী নিদেন মজে যাওয়া খাল 

রহস্যময় উলের বল খুলে খুলে যাচ্ছে, নিয়ম মতোই…

আমি সেই বলের পিছে শুন্যতা টুকিয়ে চলেছি…

ঘুম ভেঙ্গে দেখি সুধা এসে দাঁড়িয়েছে শিয়রে…

হাতে এক সাঝি শিমুল ফুল আর প্যাপিরাস গাছ…

শিমুল মাথায় দিয়ে স্কুটিতে চরে বেড়াই এক রাস্তা থেকে আরেক গলি 

সদ্য চাকরী পাওয়া দু চোখে প্রেম নিয়ে থামায় আকাশী জামার সিভিক 

হেলমেট এর তল্লাশ করে, আমি তার নাম দি আকাশ…ওকে বলি ডেকে 

এসো শিমুল ডাল হাতে নিয়ে দাঁড়াও, দেখবে তুলোর জীবনে হেলমেট লাগেনা

ও বলে পোস্টম্যান আসছে, রাজার নতুন ফরম্যান নিয়ে…

এক এক করে অন্ধকার ছুঁয়ে যায় 

ছুঁয়ে যায় ভোরের শিশির থেকে। 

শেষ বিকেলের সূর্য অব্দি সবেতেই 

সবেতেই অন্ধকার দ্যাখা কারোর অভ্যেস।

এক একটা অভ্যেস আসলে 

এক একটা গ্যাস চেম্বার।

এক একটা গ্যাস চেম্বার আসলে

এক একটা সম্পর্কের নাম।

যেখানে মৃত্যু অনিবার্য জেনেও 

মুখোমুখি বসে থাকা আছে।

বাঁচবার একটা শেষ চেষ্টা আছে 

সুধা অমল এর হারিয়ে যাওয়া আছে।

এসব কোন সময়ের অমল? আমরা জানিনা। আমরা শুধু কথোপকথন চালিয়ে যাই আগত আশঙ্কাময় ভবিষ্যৎ- এর জন্য। গোটা পৃথিবীর ডাকনাম হোক জানালা আর আমরা বসে থাকি সেই জানালার ভিতরে কোনো এক ভবিষ্যৎ দইআলার জন্য!

ফেসবুক মন্তব্য

Published by Story And Article

Word Finder

Leave a Reply

%d bloggers like this: