এক আজব রিক্সাওয়ালার গল্প : সুবীর ঘোষ

 বাসুদেবদা লেকটাউনে থাকতেন । মাসে একবার সকালের দিকে গিয়ে আড্ডা দিয়ে আসতাম । সেবার খুব রোদ ছিল । জুন মাস । মনসাতলায় নেমে একটা রিক্সা নিয়েছি । বললাম— জ্যোতি মিল চল । ওখানে নেমে বাসুদেবদার বাড়ি হাঁটা পথ ।

রিক্সা যাচ্ছে যাচ্ছে । জ্যোতিমিলের রাস্তায় না ঘুরে এগিয়ে চলল । ভাবলাম অন্য রাস্তায় যাবে বোধ হয় । কিছুটা গিয়ে কেমন জলাজংলা আসতে লাগল । চালককে জিজ্ঞেস করলাম– এদিকে কোথায় যাচ্ছ ? সে বলল– আপনি তো দক্ষিণদাঁড়ি যাবেন বললেন । নামুন , এসে গেছে । আমি বললাম –আমি তো দক্ষিণদাঁড়ি বলিনি , বলেছিলাম — জ্যোতি মিল। রিক্সাওয়ালা কিছুতেই মানতে রাজি নয় ।

না আমার ভুল হতেই পারে না । আমি বহুদিন  রিক্সা চালাচ্ছি । আপনি  দক্ষিণদাঁড়িই বলেছিলেন । কী ফ্যাসাদে পড়া গেল । আমাদের কথোপকথন তো আর রেকর্ড করা নেই । আমি যত বলি আমি  জ্যোতি মিল বলেছিলাম সে বলে আপনি  দক্ষিণদাঁড়ি বলেছিলেন । দেখলাম মাথা গরম করে লাভ হবে না ।

ওকে বললাম –দেখ ভাই যদি আমি  দক্ষিণদাঁড়ি বলতাম , তা হলে এখন তো  দক্ষিণদাঁড়ি পৌঁছে গেছ , তাহলে আমি তো নেমে যেতাম । লোকটি দেখলাম যুক্তি ব্যাপারটাই বোঝে না । সে বলল– সেটা আপনার ব্যক্তিগত ব্যাপার । গন্তব্যে এসে না নামার মধ্যে কী ব্যক্তিগত ব্যাপার থাকতে পারে সেটা আমার মাথায় ঢুকল না । আমি বললাম –দেখ আমার এখানে কোনো কাজ নেই । এখানে আমি নামবও না ।

তুমি রিক্সা ঘুরিয়ে  জ্যোতি মিলে নিয়ে গিয়ে আমাকে ছেড়ে দাও ।  রিক্সাওয়ালা এবার বলল –আমাকে দু জায়গায় যেতে হবে ।  ভাড়া বেশি লাগবে । আমি তখন একটু রূঢ় স্বরেই বললাম —এইটাই তাহলে তোমার উদ্দেশ্য ।

অকারণ ঘুরিয়ে বেশি পয়সা আদায় করা ? লোকটা গজগজ করতে করতে রিক্সা ঘোরাল । বিড়বিড় করে বলতে থাকল– আমি চিটিংবাজ নই । আমি ঠিক জায়গাতেই মানুষকে নামাই । কারোর ব্যক্তিগত ব্যাপার থাকলে আমার কী করার আছে !

এবারও আমি বুঝলাম না ভুল গন্তব্যে না নামার সঙ্গে  ব্যক্তিগত শব্দটার যোগ কোথায় । তবে আমি কিছু না বলে চুপচাপ বসে রইলাম । কিছুক্ষণ পর  জ্যোতি মিল এসে গেল । আমি রিক্সা থেকে নেমে  জিজ্ঞেস করলাম–কত ? রিক্সাওয়ালা কোনো কথা না বলে এবং ভাড়ার টাকা না নিয়েই রিক্সা ঘুরিয়ে চলে গেল । আমি বোকার মতো বেশ কিছুক্ষণ দাঁড়িয়ে রইলাম যদি সে ফেরে । না সে আর ফেরেনি । সেটাও তার   ব্যক্তিগত ব্যাপার বোধ হয় ।

সুবীর ঘোষ

সুবীর ঘোষ // ৩০১ আশ্রয়  অ্যাপার্টমেন্ট // গ্রুপ হাউসিং , বিধাননগর // দুর্গাপুর –৭১৩২১২ //

Published by Story And Article

Word Finder

One thought on “এক আজব রিক্সাওয়ালার গল্প : সুবীর ঘোষ

  1. মানুষের কত কিছুই ব্যক্তিগত হতে পারে-এ তার এক আজব উদাহরণ ।

Leave a Reply

%d bloggers like this: