কবি মালিপাখি

কবি মালিপাখি

ফুল হয়ে যাই

ঝরনা পাতায় রঙের বাড়ি,
দু একটা রঙ তাই কুড়ালাম  ।
কেউ বা শালিক, কেউ বা ফিঙে
এই নিয়ে এক রূপকথা গ্রাম  ।

পাহাড় ছুঁয়ে শীতল হাওয়ায়
কোলাজ আঁকে নীল দুটি চোখ  ।
পাতায় পাতায় পথের মিছিল —
কেউ বা দোয়েল, কেউ বা চাতক  ।

ঢেউ বয়ে যায় ঘাসের ডগায় —
নাম লেখে এক ফুল ঘোড়া তার  ।
বাউরি বাতাস আপন মনে
সুর বুনে যায় চুমকি পাতার  ।

মেঘনা মেঘের হাতছানিতে
অনুভূতির বীজ ওড়ে তাই
অলীক ভূবন কেবল ভাবে
মাঠ পেরিয়ে ফুল হয়ে যাই  ।



বাঁচা

সুলেখা তুই বন্ধু খুঁজিস ?
সুলেখা তুই ফুল ,
রাখবি কোথায় ? কবিতো সেই
লেখাতে মশগুল — !

ভাষা খুঁজছে পাগল কবি ,
আয় ও ভাষা আয় !
লবণ জলে ভাসছে দু – চোখ,
শব্দ শোনা যায় !

সুলেখা তুই বন্ধু খুঁজিস ?
সুলেখা দ্যাখ তুই ,
রুগ্ন কবি । শীর্ণ দ -ু হাত !
আকাশটা ছুঁই ছুঁই — !

কবিকে তুই সুস্থ করার
নিবিনা আজ ভার ?
তুইতো মায়া ,তোর দু – চোখেই
অরণ্য সম্ভার —

ছড়িয়ে আছে ইতস্তত !
অচেনা সব ঘাস ,
বলছে সবাই কবির সাথে
খেলবো বারোমাস !

উড়ে যাচ্ছে বলাকা দল ,
কবির মাথা ভার !
সুলেখা আজ কবিকে তোর
বাঁচানো দরকার !
 এই  পৃথিবীর স্বপ্ন জানে 
ঘন সবুজ আলোয় মোড়া একটি তারার শুদ্ধ হাসি ,
চিনবো বলেই হরিণ হয়ে আলোক ধারার স্বর্গে আসি  ।
তাই বাজে এই পাতার হৃদয়। অরূপ কথার গন্ধে মাখা ,
শিরায় শিরায় যায় বয়ে রঙ– নদীর মতো মগ্ন শাখা  ।
শাখায় শাখায় রূপ অপরূপ!দিন হলে শেষ ইচ্ছে পরী ,
শিউলি, টগর পড়তে থাকে  তাই দেখে মেঘ অশ্বে চড়ি — !
ঘন সবুজ আলোয় মোড়া সেই তারাটির গুঞ্জ গানে —
আমার মনও চাঁদ হয়ে যায় এই পৃথিবীর স্বপ্ন জানে   !



ওড়ে কদম মাস 

হাত তালি দেয় হালুম হুলুম রূপোলী এক বাঘ  ।
এখনও সেই আবীর মনে কুসুম  বেলার দাগ  ।
টাপুর-টুপুর  রূপকথা পুর । মেঘ বালিকার গান ।
আকাশ ভরা রামধনু দিন । মাঠ ভরা সব ধান  ।
রূপ ঝুমা ঝুম ঝুমঝুমি রোদ । পাখির মতো সুখ ।
গাছের নীচে কিশোরী আর একটি কিশোর মুখ ।
বুকের ভিতর অনেক তারা । ঘাসের কুঁড়ি । ঘাস ।
ডানা নাড়ায় রূপকথা পুর  — ওড়ে কদম মাস ।
            ***********************

বেঁচে থাকার আশায় কেবল  উড়ি  আর  উড়ি !



আমি

আমি চিলেকোঠা ঘরে থাকি । আমি রূপকথা পাড়া আঁকি । আমি ঘাসফুল, আমি তারা । আমি চারাগাছ, আপনারা — আমি একরাশ ভালোবাসা। আমি আলাদীন প্রিয় ভাষা । আমি ভাষাপথ বুকে জুড়ি । আমি আঁকিবুকি ওড়া ঘুড়ি । আমি একরোখা জেদি ঘোড়া । আমি আলো আঁধারিতে মোড়া । আমি কাঁচপোকা, যঁুই নদী । আমি মাছরাঙা, কেউ যদি — আমি জলপরী নাচ শেখো। আমি ভাঙাতরী, ভালো থেকো। আমি চিঠি ঘর, চিঠি চিঠি — আমি প্রজাপতি, গিরগিটি । আমি হই হই —ছেলেবেলা । আমি লুকোচুরি,লুডো খেলা । আমি আয় আয় হাঁসবাড়ী । আমি এই ভাব, এই আড়ি । আমি ঘাসফুল, আমি তারা । আমি চারাগাছ, আপনরা — ।

কবিতা ঘুম

                    মালিপাখি

আমি দুললাম মেঘনা । পাতায় আমি ডুবলাম জলে ।
গান গেয়ে যায় কবিতা দেশ । গান গেয়ে পথ চলে ।

বাউল সাগর আগুন দিলেন । হেসে বললেন ওহে,

গুন টেনে যাও । গুন টেনে যাও । শুধু বাঁচবার মোহে,

ছবি আঁকলাম । উড়িয়ে দিলাম । উড়তে উড়তে তারা —

দুলিয়ে দিলো আমার বুকে আকাশমনির চারা — !

আকাশ আমার । আকাশ আমার । হাজার বছর শেষে ,

কেউকি নেশায় পড়বে ছবি ? কেউকি হাওয়ায় ভেসে —

বলবে আবার ও শিউলি দ্বীপ ! তোমায় খোঁজা বাকি !

ভাবতে ভাবতে পাথর পুরের পথিক হতে থাকি !

পাথরে রাত , পাথরে রাত , পাথরে রাত পড়ে —

কিশোরী তুই জাগাস আমায় হাজার বছর পরে — !



গান

মালিপাখি

উড়িয়ে দেবো ওড়নাকে আজ, কাল ওড়াবো কাকে  ?

কাল ওড়াবো পাখির কোলাজ, ফুলকি  বেড়ালটাকে !!

ভুল বলেছি,বেড়াল না মোম, দেখছি  তাকেই তুলে  !

বুক  রেখেছি  একটি নরম  নাম   জানি না   ফুলে   !!

নাম জানি না  ফুল কী ও ঘুম ? খুলবো  মনের ঝাঁপি  ??

এমন সময়  বুঝতে পেলুম   !  লোকটা সদালাপি

বেশ আছি বেশ ঝুমঝুমি ভাই ! এইতো আমার বাড়ি  !

খুশির দোলায় দুলছি সবাই ! দুলছে  মেঘের সারি   —  !!








রূপকথা নদী 
মালিপাখি

টুপ্‌টাপ্‌ করে নীলাকাশ থেকে নীরবতা যেন ঝরেছে  !

এই চোখ থেকে রূপকথা নদী উপচিয়ে চাঁদে পড়েছে   !!


গান মায়া আলো মোনালিসা হয়ে মথেদের ডানা মুড়েছে  !

পাহাড়ের চূড়ো ছুঁয়ে ছুঁয়ে নেশা একরাশ খুশি  জুড়েছে !!


জোনাকিরা যেন ভুল ভুলো পথে ফুলঝুরি আশা জ্বেলেছে  !

পৃথিবীর বুকে প্রিয় ঘাস গুলো মননের ধারা ঢেলেছে   !!


টুপ্‌টাপ্‌ করে নীলাকাশ থেকে নীরবতা যেন ঝরেছে  !

এই চোখ থেকে রূপকথা নদী উপচিয়ে চাঁদে পড়েছে   !!


একশো প্রদীপ জ্বালি

মালিপাখি

আমড়া পাতা, আমড়া পাতা, আমড়া পাতার ফালি   !
আমরা দ্যাখো আকাশ জুড়ে একশো প্রদীপ জ্বালি   !


প্রদীপ ! প্রদীপ ! ও দ্বীপ বলে  নাড়ছে দু হাত কারা ?
মাছরাঙা  নয়, নাচ জুড়েছে   পাঁচটি নতুন তারা !


দিক হারিয়ে নাবিক গুলো অমোঘ আশায় ছোটে —  !
বুকের দাওয়ায় বুলবুলি দেশ,  শিউলি, টগর ফোটে !


গুন গুনিয়েই দেবদারু গাছ,  বলছে আমায় পাখি !
তোমার হাতেই পরিয়ে দেবো শাপলা গানের রাখী   !


আমড়া পাতা আমড়া পাতা আমড়া পাতার ফালি
আমরা দ্যাখো আকাশ জুড়ে একশো প্রদীপ জ্বালি




Leave a Comment

Your email address will not be published. Required fields are marked *