ছিনিয়ে নে // (বান্ধবীকে) রণেশ রায়

00

তুই আমার সাথী

হাতে হাত ধরে

জ্বালি আয় আঁধারে বাতি,

দুনিয়াটা তোর

দুনিয়াটা আমার,

দুজনেতে আধাআধি।

তুই আমার বান্ধবী,

তুই কি জানিস না ?

তুই একজন মানবী,

ভাবিস কেন

তুই নেহাতই একটা  মেয়ে,

চিনে নে নিজেকে এবার

চোখ মেল, দেখ তুই চেয়ে

পূজ্য তুই মানবতার,

তুই একজন মানবী

তুই এক স্বাধীন সত্তা

বয়ে চলিস জাহ্নবী ;

সংসারের যুপকাষ্ঠে

নিজেকে দিস না বলি,

মেঘ ভেঙে বৃষ্টি এলে

জীবনের বাগানে ফুটবেই কলি।

বিসর্জন দিয়ে নিজের সত্তা,

সংসারের কারাগারে

নিজেকে বন্দী রেখে

শেষ করে নিজেকে

কেন করিস আত্মহত্যা?

বাইরের জগৎটাও চিনে নিস আজ

সেখানে তফাৎ নেই তোর আমার,

ঘাড়ে আমাদের সমাজ গড়ার কাজ

দুজনেরই আধাআধি  অধিকার;

পাঠা তুই  আজ বিদ্রোহের বার্তা,

রুখে দাঁড়া  তুই

বাঁচাতে হবে নিজের সত্তা,

তবেই বাঁচবে নিজ অধিকার

চিনতে পারবি নিজেকে

প্রতিষ্ঠিত  হবে সন্মান তোর;

অনুকম্পা অনুগ্ৰয়ে

 বেঁচে থাকা নয় আর,

সে যে বড় ব্যভিচার,

মায়া মমতা মেধা

কোনটাই কম নয় তোর,

স্তুতি বাক্য  নয় আর,

রুখে দাঁড়া  বন্ধু

এক হাতে শঙ্খ

আরেক হাতে বজ্র তোর,

জয় করে অর্ধেক আকাশ

আঁধার শেষে নতুন ভোর

তুফান শেষে মৃদুমন্দ বাতাস

 মুক্তি আনতে সবার

ছিনিয়ে নে নিজ অধিকার I

Leave a Comment

Your email address will not be published. Required fields are marked *