প্রতিবাদহীন প্রতিবেদন : সৈকত কুমার মির্দ্দা

সে রাত আজও মনে হয় কল্পনাময়
বাইরে বৃষ্টির দাপট আর ঝড়ের গোঙানি
হঠাৎ কলিং বেলের আওয়াজ শুনি,
হকচকিত মনে ছুটে যাই দরজার কাছে
দেখি এক রমনীর প্রতিচ্ছবি
বজ্রের ঝলসানো আলোতে দেখি, এ-কি !
কাঁপা দুটি হাতে তারে জড়িয়ে ধরি
কোলে তুলে আনি কক্ষের ভিতর
স্বচাদরে তার ছিন্ন পোশাক ঢাকি,
টেবিলের ওপর মোমবাতির স্নিগ্ধ আভায়
অসহায় নারীর মুখমন্ডলের শোভায়
দুরু দুরু বুকে তারে কিছু জিজ্ঞাতে সাহস করি ।
শুনি সে নাকি সন্তানহীনা
তাই স্বামী তারে দিয়েছে তাড়িয়ে,
এই দূর্যোগের রাতেও সে হয়েছে ধর্ষিত
অসহায় শরীরেও বাঁচার ইচ্ছে তারে জাগায়
তাই করাঘাত করেছে আমার গৃহের দরজাতে ।
শুনেছি মানুষ নাকি প্রকৃতির সন্তান
সন্তানের অসম্মানেও প্রকৃতি হেসেছে অট্টহাস‍্য ।
সমাজের নাগপাশে কত নারী আজও নৃশংষতার শিকার
বোঝোনি তাদের যন্ত্রনা কেউ, হয়নি সৌভাগ‍্য ।
তারা কেবল অশ্রু ঝরায় শ্রাবনধারার মতো
কেহ পারেনা মেটাতে নারীর ঋন।
নিষ্ঠুর দুষ্প্রাপ‍্য সমাজে আমরা অন্ধ জীব
কলমের সৌজন‍্যে আমি কবি কিন্তু প্রতিবাদহীন ।

ফেসবুক মন্তব্য

Published by Story And Article

Word Finder

Leave a Reply

%d bloggers like this: