পরশ – ডি কে পাল

মা’ দিবসে সকল ‘মা’কে শ্রদ্ধা নিবেদন

চিরআপন  মা- জননী,তোমার কি পর হই?
তোমার শিক্ষা, দীক্ষা নিয়ে আমরা বেঁচে রই।
শরীর রূপে নেই যদিও,আদর্শতে বাঁচো,
পারিবারিক সুখে,দুখে সারাটিক্ষণ আছো।
সমস্যাতে পড়ি যখন
তোমার কথা ভাবি তখন
ওমনি এসে বুদ্ধি দিয়ে যাও সমাধান ক’য়ে,
তোমার সুখের পরশ পেয়ে যাচ্ছে জীবন বয়ে।

ঘুমের দেশে একদিন -সবিতা কুইরী

একদিন গভীর রাতে
     যাচ্ছি কোথাও দুরে
পক্ষীরাজের পিঠে চড়ে
     যখন উড়ে উড়ে ।

নানারকম দৃশ্য আমি
     দেখছি পথের পরে
মানুষেরা দাঁড়িয়ে সারি
     গাছগুলো সব ঘরে।

রান্না করে গাছের পাতা
     ফুল ধরেছে গান
চারা গুলো নৃত্য করে
     আনন্দে খান খান।

ঝাঁকড়া মাথার মানুষ গুলোর
     রঙবেরঙের চুলে
প্রজাপতি লুটছে মধু
     যেমন রঙিন ফুলে।

বাঘ গুলো সব মানুষ ঘেঁষা
     খাচ্ছে গাছের পাতা
ছাগল ছানা খুঁজছে মানুষ
     মুড়িয়ে খেতে মাথা ।

আজগুবি সব দৃশ্য দেখে
     হচ্ছি আমি অবাক
সব মানুষই বোবা সেথা
     গাছেরা সব সবাক।

ঘাস গুলো সব পিঁপড়ে কিনা
     দেখতে নামি নীচে
ছাগল হরিণ খেতে মাথা
     ছুটল আমার  পিছে ।

বাঁচাও মুখে আসছে না আর
     হারিয়ে গেছে ভাষা
ভীষণ ভয়ে জেগে উঠি
     স্বপ্ন ছিল খাসা।

ফেসবুক মন্তব্য

Published by Story And Article

Word Finder

One thought on “পরশ – ডি কে পাল

  1. জ্ঞানীর জন্য সুখ——ডি কে পাল
    ——————

    ছোট্ট অণুজীব—-
    নেই কি রে তোর লীভ?
    মানুষ ধ’রে মানুষ মেরে
    হস্ রে চিরঞ্জীব!

    মনুষ্য ভুল ছাড়া—–
    কেমনে পারিস, —-দাঁড়া—-
    শুয়ে যাবি দু’তিন দিনেই
    এমনি,—-বালিশ ছাড়া।

    অসীম শক্তি তোর—-
    পৃথ্বীটা আজ গোর,
    মূর্খতাকে ভর করে তোর
    যাচ্ছে বেড়ে জোর।

    আগুন –পেলে বাগে,
    খুব ভয়ানক রাগে
    জ্বালায়,পোড়ায়,ছাই ক’রে দেয়
    বিচার কে বা মাগে?

    আসল কথা ভুল—-
    অজ্ঞতা যার মূল,
    করোনা তাই বাগে ফেলে
    জীবন নেয় অতুল।

    যে বোকা যায় কাছে—-
    মাশুল গোনে পাছে,
    পিপীলিকা পাখায় উ’ড়ে
    মরণটাকে যাচে।

    নয় আর খোঁড়া যুক্তি—-
    প্রাণপণে চাই মুক্তি,
    সমবেত প্রচেষ্টা হোক
    করোনা’কে রুখতি।

    জ্ঞানীর জন্য সুখ—-
    সাহস ভরা বুক,
    কঠিন ব্রতে থাকলে ঘরে
    রক্ষা পেত মুখ।
    ——————————–
    কপিরাইটঃডি কে পাল
    তাং১৩/০৫/২০২০

Leave a Reply

%d bloggers like this: