বহমান সময় : সমর সুর

সরাদিন মার্কেটে চষে বেড়ানোর পর রতু যখন সন্ধ্যায় বাড়ি ফিরে গেটের কাছে এসে দাঁড়াতেই মাথাটা সঙ্গে সঙ্গেই গরম হয়ে গেল। ঘরের ভিতর থেকে টিভি  চলার শব্দ গম্ গম্ করে ভেসে আসে রতুর কানে।

নিশ্চিত  লেখাপড়া বাদ দিয়ে ছেলে দুটো  টিভি চালিয়ে বসে আছে।আর বউটাও তেমন কিছুই বলে না ছেলে দুটোকে।বলবেই বা কি।আদর দিয়ে বাঁদর করছে ছেলে দুটোকে। 

  ঠিক যা ভেবেছিল তাই।  ঘরে ঢুকেই দেখে রিমোট হাতে নিয়ে বড়টা দাঁড়িয়ে আর ছোটটাও তার পাশে দাঁড়িয়ে আছে।যেন ফুলবেলপাতা নিয়ে অঞ্জলি দেবে।রেগে গিয়ে রতু এক থাবা দিয়ে রিমোটটা কেড়ে নিতেই বড়ছেলেটা বলে উঠল প্লীজ বাবা আর একটুখানি আছে, এখনি রেপ হবে তারপর বন্ধ করো টিভি প্লীজ।


        এই কথা শোনা মাত্র রতুর বাকরুদ্ধ হয়ে গেল। বলে কি ! মাত্র টুয়ে পড়া ছেলে আর ছোটাটা তো আরও ছোট এখনি বলে কিনা রেপ হবে ! কি করবে মারবে টেনে এক চড়, না টিভিটাই ভেঙ্গেই ফেলবে। বরং টিভিটা ভেঙ্গে ফেললে না থাকবে বাঁশ না বাজবে বাঁশরী।আবার ভাবতে লাগল তা হয়ত ঠিক হবে না ভেবেই টিভি টা বন্ধ করে দিতেই বড় ছেলে রেগে গিয়ে বলে উঠল,তুমি একটা ভিলেন ! 

    রতুর রাগ যেন আরো চড়ে গেল। কিছুক্ষন বকাবকির পর নিজেকে সামলে নিয়ে ছেলেকে ডেকে জিজ্ঞাসা করল, আচ্ছা বলতো  রেপ কি?– জানো না? লোকটা মেয়েটাকে তাড়া করে নিয়ে জঙ্গলে যাবে  তারপর মেয়েটার গায়ে উপর লোকটা উঠবে, ব্যাস রেপ হয়ে গেল।   

 এই কথা শোনামাত্র রতু হতভম্ব হয়ে গেলো।  তারপর রতু কি করেছিলো আর  জানি না টিভিটা কি ভেঙ্গেই ফেলেছিলো ! কারন রতুর সঙ্গে আমার আর দেখা হয় নি অনেকবছর। প্রশ্নচিহ্নের মতো আমিও ঝুঁকে আছি বহমান সময়ের দিকে…

শ্যামা প্রসাদ পল্লী।পোঃ রাণাঘাট।জেলা ঃ নদীয়া।পিন ঃ 741201.

ফেসবুক মন্তব্য

Published by Story And Article

Word Finder

Leave a Reply

%d bloggers like this: