ভুবন পথে – মোঃ রায়হান কাজী

চির সবুজের দেশে হাঁটতে গিয়ে, 

বাঁশির সুর শুনি রাখালের কাছে গিয়ে। 

আদি অবসান ঘটিয়ে পর্যালোচনা, 

যুগে যুগে দৃশ্য ফুটে পরিবর্তন নিয়ে। 

প্রাতের বেলা মুখ তুলে দেখি গগণের দিকে,

সূর্য উদয় হয় পূর্ব দিগন্তে হাসি মাখিয়ে। 

সেই আলো দিয়ে সিন্দুর লিখা আঁকি,

ছন্দে ছন্দে পুরাণকাহিনি দিয়ে সাজিয়ে। 

আলোয় উজ্জীবিত ধরণী মাঝে, 

এক যুগ হতে আরেক যুগের বৈষম্য বর্ধক, 

দূর থেকে আসে অতি নিকটে ফিরে। 

সেই চিত্র দেখি বারেবারে মানবের চোখে। 

নিসর্গ রুপ রসিকতা দেখতে দেখতে,

সুর শুনি দূরের পাহাড়ের কাছ থেকে, 

ঝর্ণার পানি পরে গাঁ বেয়ে উপর থেকে। 

মুগ্ধতা সারা দেয় পরিবেশ জুড়ে। 

নিশিভোর এক করে শুধু তোমায় খোঁজা,

ভুবনের পথে পথে একান্ত মনে সজীবতা। 

তবুও অবিরাম অভিসার বিরহী সাঁজে চির,

নিখিলের বৃক্ষে প্রীতি স্নেহের প্রতিশব্দ শুনে।

কত রূপ কত বর্ণ চিহ্নিত গন্ধে মন ভরে, 

আলোয় উজলি লক্ষ নয়নের ফাঁক দিয়ে। 

তিমির রাত্রে মশাল জ্বালিয়ে বেরিয়ে পরি, 

ছায়াপথে চরণচিহ্ন ফেলে এগিয়ে দিতে। 

ফেসবুক মন্তব্য

Published by Story And Article

Word Finder

Leave a Reply

%d bloggers like this: