শরৎ এল বুঝি – ছন্নছাড়া

হঠাৎ দেখি নীল আকাশে সাদা পেঁজা তুলোর মত মেঘ,

ঘুরে বেড়ায়,এদিক থেকে ওদিক পানে,সঙ্গে হাওয়ার বেগ।

আকাশটা যায় দূরে সরে, যেন নীলরঙা এক নদী,

মেঘ গুলো সব ভাসছে সেথায় নৌক সম, কল্পনাতে দেখি।

ওপর পানে চাইলে দেখি রঙ বেরঙের ছবিরা সব,

মূহুর্তে মধ্যে বদলে গিয়ে হয় তারা নতুন নতুন অবয়ব। 

#

মাটির পানে চাইলে দেখি সকাল বেলার শিশির ঝরা ঘাসে,

ঝরে পড়া শিউলিরা সব খিলখিলিয়ে সেথায় যেন হাসে।

শিশুরা সব ব্যস্ত সেথায়, কুড়াতে সেই শিউলির দল,

ব্যস্ত তারা এমন, মনে হয ছটফটে এক হরিণশাবক দল।

তাদের মাঝেই প্রকাশ পেল, ধরায় শরৎ বুঝি এল,

মনের মাঝে খুশির জোয়ার তাই ত আবার দেখা দিল।

#

নদীর ধারে কাশবনে সব ফুটেছে হাজার হাজার ফুল,

হাওয়ায় তালে দোলায় মাথা তারা আনন্দে বিলকুল।

সবুজ বনের মাথায় আজ দুলছে দেখি সাদা কাশের তাজ,

সেই শোভাতে হারিয়ে যেতে আমি পাই না কোন লাজ,

সেই বনেতে হারিয়ে যেতে চাইছে আমার মন,

আনন্দেতে মাততে রাজী আমি, সঙ্গে সবার এখন।

#

অতিমারী, আম্ফান দিয়ে গেল ব্যথা, করল অনেক ক্ষতি,

সেই ক্ষতি ভুলতে এবার শরৎ হোক মোদের সাথী।

আগমনীর বাদ্য বাজুক আবার নতুন নতুন সুরে,

যত আছে দুঃখ, ব্যথা সকলই যাক তবে দূরে।

আগমনীর আগমনের বার্তা এস সবে নতুন করে গাই,

দুঃখের পর সুখ আসে, প্রবাদে আছে, যেন সত্যি হয় তাই।।

Published by Story And Article

Word Finder

Leave a Reply

%d bloggers like this: