সংযম – অভিষেক সাহা

Spread the love

 ” একটা বছর ঠাকুর দেখতে না গেলে কী মরে যেতিস। টিভিতে তো সব দেখাল। তোর দাদা আর আমি তো চারদিন ধরে তাই দেখলাম। তোদের একটুও কন্ট্রোল নেই !”  পুজোর ছুটি কাটিয়ে ফেরা রান্নার মাসি রতনের মা-কে বাড়িতে ঢোকার গেটেই আটকে কথাগুলো বলল ঋতু। 

ঋতু স্কুলে পড়ায় আর ওর বর ব্যাঙ্কে চাকরি করে। তাই রান্নার লোকের ভীষণ দরকার। করোনার কারণে এখন স্কুলে অখন্ড বিরতি চলছে। ঋতু অনেকটাই সামলে নিয়েছে।

” কী করব বৌদি বাচ্চা ছেলেটা  এত বায়না করল  ইচ্ছা না থাকলেও  বেরোলাম।” অপরাধীর মত  বলল রতনের মা।

” নিজের ইচ্ছায় ঘুরতে  বেরিয়েছিস এবার আমার ইচ্ছায় টেস্ট করে রিপোর্ট নিয়ে আয়। না হলে চোদ্দ দিন পরে আয়। তবে হ্যাঁ, এই চোদ্দ দিনের টাকা  পাবি না।” গম্ভীরভাবে কথাগুলো বলল ঋতু। 

” বিশ্বাস কর বৌদি, মাস্ক পরে ছিলাম,  সাবান জল দিয়ে রাস্তায় হাত ধুয়েছি , আমাদের কিচ্ছু হয়নি। এখন টাকা  কাটা গেলে খুব অসুবিধা হবে!” কাতর অনুরোধ করল রতনের মা।

” সংযম বুঝিস সংযম, নিজের ইচ্ছাকে চেপে রাখতে জানতে  হয় । তোদের আর কী ! ঢাকের আওয়াজ শুনে বাচ্চা বলল যেতে , আর তোরাও নেচে বেরিয়ে গেলি। যেটা বললাম সেটা কর ।” ঋতু নিজের সিদ্ধান্তে অটল থাকল।

অনেক অনুরোধ করেও রতনের মা  বুঝল ফিরে যেতেই হবে। যাওয়ার আগে শুধু বলে গেল ” বৌদি গো ,  সারাজীবন তো  আমরা ইচ্ছা মেরেই বাঁচি । “

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *