বিষাধময় বাস্তবতা – এম.জাকারিয়া আহমেদ

.

বাস্তবতা যখন মানুষকে চারদিক থেকে ঘিরে ধরে
আবেগ, ভালোবাসা প্রেম তখন
ওই দূর মেঘের মূল্লুকে পালায় !
আর যখন দিনান্তে ফিরে আসে
অন্ধকার রাত তখন নিরবে অশ্রু
ঝরে চোখের তারায় !
দূর্নীতি, সুদ, ঘুষ দালালে ভরে গেছে দেশ
চার দিকে শুধু ভন্ড আর ভন্ড,
মধ্যে বিত্তের ঘানি টানা শিক্ষিত ছেলেটি
আজ চাকরির বাজারে আহতের মতো,
নিস্তেজ দেহ নিয়ে ঘুরে বেড়ায়
ওই কুচক্রের পেট ভরাতে পারেনি বলে
চাকরিটাও হয়ে যায় পন্ড !
বুকের ভেতর লালিত স্বপ্ন ভেঙ্গে যায় বার বার
তবু ক্ষেঁপা ছেলেটা ঘরে ফিরে শান্ত হয়ে,
বুঝতে দেয়না পরিবারকে কতটা দকল যাচ্ছে
চাকরির তরে দোয়ারে দোয়ারে ফাইল হাতে ছুটায় !
চলনে বলনে যে ছেলেটি সমাজে ছিল সু- পরিচিত
আজ সেই সমাজই তাকে দেখে তাচ্ছিল্যের হাসি দেয়
শুধু একটাই তার অপরাধ সে বেকার !
একটা সময় পরিবারও তাকে সমর্থন দিতে
ব্যার্থতা দেখায় চোখ রাঙিয়ে,
সমস্ত বাঁধা অতিক্রম করে বড্ড কঠিন হয়ে যায়
তার পথ চলা, তবু যেন কোন অদৃশ্য শক্তি তাকে
আপোষহীনভাবে লড়তে সাহস যোগায় !
তখন আরো দৃঢ় মনোবল নিয়ে লেংটি কাচা
প্রচেষ্টায় এগিয়ে যায় দুরন্ত গতীতে,
কিন্তু ওইযে কু চক্র আবার ঘিরে ধরে তাকে
হাল চাল যাই হোক টাকা চাই
নইলে এই দোয়ারে কোন সিট খালি নাই !
সুশিল যুবাটা ক্ষেপে একাকার নিজের জন্মের উপর
টপাটপ অশ্রু গড়ায় না চাইতেও চোখের কোণায় !
আকাশের দিকে তাকিয়ে হাউমাও করে কেঁদে
নালিশ জানায় স্রটার আদালতে !
একটা সময় হারিয়ে যায় মনোবল লড়াই করার,
ভেঙ্গে পরে দেহ, মন কারন একটাই নেইযে ধন !
বিমর্ষ হৃদয় নিয়ে ঘরে ফিরে আলগোছে ফাইলটা
গুজে রাখে কোন নিরাপর স্থানে এই মনে করে
কাজে লাগবে কোন একদিন।
নেমে যায় চোক্ষ লাজ পন্ড করে কোন ইট ভাটায়
দিন মজুরের কাজে, রোদে পুড়ে একাকার !
যেই দেহ একদিন তেলতেলে থাকতো
পরিপাটি থাকতো সিঁথি করা চুলে,
আজ সেই ভাঁজে জমে থাকে কাদা বালির
স্যাঁতস্যাঁতে আবরণ !
আজ সে সব বিসর্জন দিয়ে একজন দায়িত্বশীল
তার পরিবার পরিজনদের কাছে,
তবুও সমাজ, নিন্দুক পিছু ছাড়েনি তার
রটিয়ে যায় তার দুর্বলতার সুযোগে অকথ্য বুলি।
কিন্তু এখন আর তা গায়ে লাগেনা
সয়ে গেছে দেহে মনে পোষাকের মতো !
তবে একটা জিনিশ সে ঠিকই শিখেছে
সততার জ্ঞান, যা নিয়ে বেচে থাকবে আমৃত্যু লগন।
একদিন হয়তো তারও দিন ফিরবে ঘুরবে হয়তো
কোনদিন ভাগ্যের চাকা,  তবে দেখে গেল
সয়ে গেল নিরবে নির্মম বাস্তবতা
এই হলো বেকারত্বের করুণ বাস্তবতা,
এভাবেই মধ্যেবিত্তের সন্তানরা ঘানি টানে
আমরণ নিরবে নিরলসভাবে
তবুও নিজেকে আপোষ করেনা কু চক্রের হাতে !
এই হলো মধ্যেবিত্তের বিষাধময় বেকারত্ব !!!

.
আপনার মতামতের জন্য

mjakariaahmed

Leave a Reply