পাগল – এম. জাকারিয়া আহমেদ

চেনা পথে অচেনা সুর
তাই আজ আর কাটেনা ঘোর,
জ্বীর্ণ হৃদয় শীর্ণ দেহ
যেন কোন ফাঁকা রেল স্টেশন !
যেখানে সন্ধ্যা, রাত্রি, হয়না ভোর,
অগোছালো চুল,
কোনটা সঠিক কোনটা ভুল !
ভাঙ্গাচূড়া ঘর ছেড়া শীতল পাটি,
ফুটো ছাদনাতলায় শুয়ে
দেখি চাঁদের ঘাটি !
ধূলিমাখা মুখ ভাঙ্গা আয়না
লোকে বলে পাগল
তাতে আমার যায় আসেনা।
ঝাপসা আলো ঘোলা কুয়াশা
তুমিহীন আমি রঙহীন আকাশ,
একলা বিলাপ, আনমনা হাসি।
সূতো ছেড়া ঘুড়ি ভাঙ্গা গুড়ু নুড়ি
কেবা কারে খুঁজে এর নাই জুড়ি !
দাসা ভাঙ্গা ছাতা ঝাঁঝরা কাপড়,
আলোর বৃষ্টি পড়ে রুদেলা দুঁপুর।
ক্লান্ত বিকেল ভাঙ্গা স্বপ্ন,
উদাস পথিক চলার নেই দিক !
আগা গোড়া লালশালু
কোথায় খাওয়া, কোথায় নাওয়া,
তাহার নেইকো ঠিক !
আধা খাওয়া উপোস
তারা ভরা রাত,
বন কিংবা জঙ্গল,
নেকড়ে, হাতি,  হোকনা বাঘ !
যেথায় রাত্রি সেথায় কাঁৎ !
বজ্র ফাটুক অগ্নি জ্বলোক
তাকে রুখা বড় ভাড় !
লোকের মুখে পাগল ধ্বণি
এতে যায় আসে কার ?
অট্টহাসি মুখের পড়ে
গড়ায় চোখে জল,
লোকে আমায় শুধায় ভ্যাঙায়
আবার নাম দিয়েছে পাগল !

 

mjakariaahmed

Leave a Reply