Abhisek Saha

# অণুগল্প — মাসির বাড়ি
# গল্পকার — অভিষেক সাহা

” তুমি কী এই বয়সে রথ নিয়ে রাস্তায় বের হবে নাকি ?” ঘর মুছতে মুছতে লাভলিকে কথাগুলো বলল সোহাগী।
” তুই নিজের কাজ কর না মাসি, কেন আমাকে ডিস্টার্ব করছিস? আমার এখন অনেক কাজ। এই তিনতলা রথটাকে ফুল দিয়ে সুন্দর করে সাজাতে হবে, তারপর শ্রীজগন্নাথ, বলরাম আর সুভদ্রাকে বসাতে হবে। ওনাদের সাজাতে হবে। তারপর আলোর ব্যবস্থা, প্রসাদ সব। তুই একটু চুপ কর !” সোহাগীকে একটানা কথাগুলো বলল লাভলি।
সোহাগী লাভলির হাউজ হেল্প। ঘর মোছা, বাসন মাজা, ঘর গোছানো থেকে শুরু করে কখনও কখনও রান্নাতেও সাহায্য করে। সোহাগী একদিন না এলে লাভলি বিনা লোডশেডিং-এ চারদিকে অন্ধকার দেখে। এমনকি কোন কোন দিন তো অফিস থেকেও ছুটি নিয়ে নেয়।
লাভলির বয়স মধ্য তিরিশে। বছর দশেক আগে বিয়ে হয়েছিল। দু’বছরের মধ্যেই ডিভোর্স হয়ে যায়। সেই থেকে লাভলি এই নতুন ফ্ল্যাটে একাই থাকে। প্রথমে অন্য একজন ছিল, তারপর সোহাগী কাজে আসে। কোন এক অজ্ঞাতকারণে প্রথম দিন থেকেই লাভলি সোহাগীকে মাসি বলে ডাকে। যদিও সোহাগীর এখনও দু’বছর বাকি তিরিশ ছুঁতে।
নিজের কাজে পাশের ঘরে চলে যায় সোহাগী। মনে মনে ভাবে, বড়লোকদের কত নাটক ! বাড়িতে কোন বাচ্চা নেই ,তাও একটা তিনতলা রথ কিনে এনে সাজাতে বসেছে। আর আমার অবস্থা দেখ, বাড়িতে আট বছরের একমাত্র মেয়ে বুল্টি নতুন রথের জন্য বায়না করছে । ইচ্ছে তো আছে , কিন্তু দেব কী করে ! একে তো করোনা তার উপর মাঝেমাঝেই লকডাউন, হাতে কাজ কমে গেছে, বাজারে জিনিসপত্রের দামে আগুন, ছুঁলেই ছ্যাকা লেগে যাচ্ছে। মেয়েকে বলেছি বাবা কাজ থেকে ফিরে পুরোনো রথটাই পেরেক ঠুকে ঠিক করে দেবে, ওটাই চালাবি। শুনেই তো মেয়ে মুখ হাঁড়ি করে বসে আছে , এখানে আসার সময় একটাও কথা বলেনি।
” আরে ও সোহাগী মাসি , কোথায় গেলি, একবার আয় তো, দেখ না সাজানো ঠিক আছে, নাকি অন্য কিছু করব ?” লাভলি গলা চড়িয়ে ডাকে সোহাগীকে।
সোহাগী পাশের ঘর থেকে ছুটে আসে। মনে মনে ভাবে, কে আর তোমার রথ দেখবে ? মুখে বলে ” না, না, ঠিকই তো আছে। তা তুমি কখন রথ নিয়ে বের হবে?”
লাভলি রথ সাজাতে সাজাতে মজা ঢালা গলায় বলে ,” এই বুদ্ধি নিয়ে তুই সংসার করিস! আমি রথ চালাতে যাব কেন? শ্রীজগন্নাথ তো আজ মাসির বাড়ি যাবেন। আর তুই আমার মাসি হোস। বাড়ি গিয়ে বুল্টিকে বলিস, বিকেলবেলা এসে যেন রথটা নিয়ে যায়। সবসময়ের জন্য । ”

সমাপ্ত

Leave a Comment

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Scroll to Top